সামরিক শক্তিতে ১১ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ

এক বছরের ব্যবধানে সামরিক শক্তির দিক থেকে ১১ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। গ্লোবাল ফায়ারের ২০১৯ সালের জরিপ অনুযায়ী, বিশ্বের ১৩৬টি দেশের মধ্যে ৪৫তম শক্তিশালী দেশে রূপান্তরিত হয়েছে বাংলাদেশ। অথচ সংস্থাটির ২০১৮ সালের গবেষণা অনুযায়ী ঢাকার অবস্থান ছিল ৫৬তম।সামরিক শক্তি নিয়ে গবেষণাকারী আন্তর্জাতিক এ সংস্থাটির সাম্প্রতিক তথ্যে বলা হয়েছে, সার্বিক বিবেচনায় বিশ্বের ১৩৬টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের সামরিক বাহিনীর অবস্থান এখন বিশ্বের ৪৫তম।২০১৯ সালে বিশ্বের ১৩৬টি দেশের সামরিক শক্তি পর্যালোচনা করে এই পরিসংখ্যান দিয়েছে গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার।প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠানটি যে তালিকা প্রকাশ করেছিল সেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৫৭তম।

আর ২০১৮ সালে ছিল ৫৬তম এবং ২০১৯ সালে বাংলাদেশ ০.৭১৫৬ শক্তিসূচক নিয়ে ৪৫তম অবস্থানে রয়েছে।উল্লেখ্য, গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার তাদের জরিপে কোনো দেশের পরমাণু শক্তির বিষয়টি ধর্তব্যে নেয়নি। তবে স্বীকৃত ও সন্দেহভাজন পরমাণু শক্তিধর দেশগুলোকে বিশেষ বিবেচনায় রাখা হয়েছে।অন্যদিকে, একটি দেশের সামরিক সরঞ্জামের সংখ্যা দিয়ে এই শক্তিমত্তার বিষয়টি নির্ণয় করা হয়নি। বরং দেশটির সামরিক সরঞ্জাম কতটা বৈচিত্র্যপূর্ণ, সেটাকেও বিবেচনায় নেয়া হয়েছে।গ্লোবাল ফায়ার বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সামরিক খাতের তথ্য সংগ্রহ ও গবেষণা করে প্রতি বছর এ ধরনের একটি তালিকা প্রকাশ করে। যেখানে সামরিক শক্তির দিক থেকে শক্তিশালী দেশগুলোকে ক্রমানুযায়ী সাজানো হয়।আলোচিত ছবি ‘মাসুদ রানা’র নায়িকা চরিত্রে বলিউড তারকা শ্রদ্ধা কাপুরের নাম শোনা গিয়েছিল। এ নিয়ে আনুষ্ঠানিক বিবৃতিও দিয়েছিলেন ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। তবে তাদের সে বিবৃতি মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। শ্রদ্ধা নিজেই জানিয়েছেন, ছবিটিতে তার চুক্তিবদ্ধ হওয়ার খবর মিথ্যা। তিনি ছবিটি করছেন না এবং কোনো সাইনিং মানিও নেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares