তরুণীদের স্বাস্থের ওপর প্রভাব ফেলছে সোশ্যাল মিডিয়া

সারা বিশ্বে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের দিক থেকে বাংলাদেশে ২য় স্থানে রয়েছে। এটি যেমন গর্বের তেমনি ঝুঁকিরও বটে। কেননা সম্প্রতি এক গবেষণায়, বাড়িতে বসে তরুণদের তুলনায় তরুণীদের আসক্তি একটু বেশি।

আপনার বাড়ির উঠতি বয়সী সন্তানও নিশ্চয়ই মেতে রয়েছে ফেসবুক কিংবা ইনস্টাগ্রামে? কম বয়সে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার কী ক্ষতি করছে তাদের।

এখন সোশ্যাল মিডিয়ার নেশায় জড়িয়ে পড়ছেন প্রত্যেক বয়সের মানুষই। ছোট ছোট বাচ্চারাও ব্যবহার করছে তাদের বাবা বা মা কিংবা কোনও অভিভাবকের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট। আজকালকার বাবা-মায়েরাও বাচ্চাদের ব্যস্ত রাখতে তাদের হাতে তুলে দিচ্ছেন স্মার্টফোন এবং পাসওয়ার্ড বিহীন সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট। কিশোর-কিশোরীরাও মনের আনন্দে ব্যবহার করে যাচ্ছে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম। আপনার বাড়ির টিন এজ সন্তানও নিশ্চয়ই মেতে রয়েছে ফেসবুক কিংবা ইনস্টাগ্রামে? তাহলে জানুন কম বয়সে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার কী ক্ষতি করছে তাদের।

ইউনিভার্সিটি অফ এক্সেসের গবেষকরা সম্প্রতি একটি তথ্য প্রকাশ করেছেন। যাতে তাঁরা জানাচ্ছেন, কিশোর এবং কিশোরী উভয়ই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করলেও ১০ থেকে ১৫ বছর বয়সী কিশোরীদের স্বাস্থ্যের জন্য তা খুবই ক্ষতিকর। তাঁরা জানাচ্ছেন, কিশোরদের তুলনায় এই বয়সী কিশোরীরা দিনে ১ ঘণ্টারও বেশি সময় সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে। সেখানে এই বয়সের কিশোররা গেম খেলায় বেশি সময় দেয়।

গবেষকদের মতে, কিশোর বয়সে অতিরিক্ত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার তাদের মনের উপর প্রভাব ফেলে। যাতে ক্ষতিগ্রস্থ হয় কিশোরীদের মস্তিষ্ক। মস্তিষ্ক সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে পারে না। তাই আপনার বাড়ির কিশোরীও যদি অতিরিক্ত পরিমাণে সোশ্যাল মিডিয়ায় আসক্ত হয়ে পড়ে, তাহলে তাকে এখনই সাবধান করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares