এটা খু*ন, স্বী*কার করুন: বুয়েট ভি*সিকে শিক্ষার্থীরা

আবরার হত্যার দুইদিন পর শিক্ষার্থীদের সামনে এসে তোপের মুখে পড়লেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। মঙ্গলবার (০৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করে তিনি আন্দোলনকারীদের দাবির প্রতি নীতিগতভাবে সমর্থন জানান।

এসময় ভিসি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়া শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের কাছে আট দফা দাবি বাস্তবায়নের অঙ্গীকার চান। কিন্তু ছাত্র প্রতিনিধির সঙ্গে উপাচার্য আলোচনার প্রস্তাব দিলে তাতে শিক্ষার্থীরা দ্বিমত জানান। একইসঙ্গে ভিসির বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দেন শিক্ষার্থীরা। সব দাবি আদায় না হলে আরো জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলার ঘোষণা দেন তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলতে ভিসি বলেছেন, ‘আমি তোমাদের অভিভাবক, তোমরা আমার সন্তান। আবরারের সাথে যে ঘটনাটি ঘটেছে সেটা অনাকাঙ্ক্ষিত।’

এ কথার জেরে শিক্ষার্থীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তারা ভিসিকে বলেন, ‘এটা একটা খুন, আপনাকে স্বীকার করতে হবে।’

এর আগে শিক্ষকদের সঙ্গে বৈঠক শেষে মঙ্গলবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম ভিসি ভবনের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলতে আসেন। পরে তাকে প্রায় ৪০ মিনিট অবরুদ্ধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের শান্ত হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে ভিসি বলেন, ‘আমি শিক্ষামন্ত্রী ও উপমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি। তারা দেশের বাইরে আছেন। সেখান থেকে তারা যেভাবে নির্দেশনা দিচ্ছেন আমি তা পালন করছি। আমি তোমাদের দাবিগুলো দেখেছি। এসব নিয়ে তোমাদের শিক্ষকদের সাথে কথা হয়েছে। আমি সব দাবি মেনে নিয়েছি।’

এ সময় কয়েকজন শিক্ষার্থী উত্তেজিত হয়ে ভিসিকে বলেন, ‘আবরার খুন হওয়ার পর আপনি কই ছিলেন? গতকাল কেন এখানে আসেননি?’

ভিসি বলেন, ‘আমি এখানেই ছিলাম। আমি গত রাত দেড়টা পর্যন্ত কাজ করেছি।’

এরপর ভিসি চলে যেতে চাইলে শিক্ষার্থীরা ‘ভুয়া ভুয়া’ বলে স্লোগান দিতে থাকেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares