অভিবাসী ঠেকাতে ট্রাম্পের ‘নিষ্ঠুর’ পরিকল্পনা

অভিবাসী ঠেকাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভয়ানক চিন্তা শুনলে আপনিও হতবাক হবেন। তার ওই পরিকল্পনার কথা ফাঁস করেছে খোদ মার্কিন গণমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস।খবরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প তার সংশ্লিষ্টদের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, আমেরিকার সীমান্তে এমনভাবে প্রাচীর দেওয়া হবে, যা টপকানোর সাধ্য হবে না কোনো অনুপ্রবেশকারীর। প্রাচীরের গায়ে লাগানো থাকবে বর্শার ফলা। ফলে কেউ প্রাচীর ডিঙাতে গেলে ক্ষতবিক্ষত হয়ে যাবে।শুধু তাই নয়, প্রাচীরের গায়ে থাকবে গভীর পরিখা। তার পানিতে ছাড়া হবে বিষধর সাপ ও কুমির। কেউ যদি কোনোভাবে প্রাচীর টপকায়ও, তাহলে সাপ ও কুমিরের আক্রমণে মারা পড়বে।হোয়াইট হাউসের এক ডজনের বেশি কর্মকর্তার সাক্ষাৎকার নিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমস এ সম্পর্কে একটি রিপোর্ট ছেপেছে মঙ্গলবার। যার শিরোনাম- ‘বর্ডার ওয়ারস: ইনসাইড ট্রাম্পস অ্যাসল্ট অন ইমিগ্রেশন’।

বিষয়টি নিয়ে কিছুদিনের মধ্যে একটি বইও প্রকাশ করতে যাচ্ছে গণমাধ্যমটি। আর মঙ্গলবার যে রিপোর্ট ছাপা হয়েছে, তা সেই বইয়েরই অংশ বিশেষ।প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তাদের তিনি নির্দেশ দেন, খুব তাড়াতাড়ি মেক্সিকো সীমান্তে দুই হাজার কিলোমিটার এলাকায় বেড়া দেওয়ার কাজ সম্পূর্ণ করতে হবে। কেউ যদি বেড়া টপকাতে চায়, সোজা গুলি করতে হবে তার পায়ে।মঙ্গলবারের ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, ওভাল অফিসে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তৎকালীন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টাক্রিস্টেন নিয়েলসেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও, তৎকালীন শুল্ক ও সীমান্ত নিরাপত্তা দফতরের প্রধান কেভিন কে ম্যাক অ্যালিনান প্রমুখ।নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, বৈঠকে নিয়েলসন ও পম্পেও-র ওপর রেগেও যান ট্রাম্প। কারণ তারা তার চিন্তার সঙ্গে পূর্ণ একমত হতে পারছিলেন না।এ সময় ট্রাম্প তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, আমি জানি, মেক্সিকোয় আপনাদের অনেক বন্ধু আছে। আপনারা তাদের হয়ে কথা বলছেন। আমি চাই, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সীমান্তে প্রাচীর দেওয়া হোক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares